fbpx

এই মূহুর্তে বিজনেস ওয়ার্ল্ডের অত্যন্ত ট্রেন্ডি একটি টপিক - CocaCola, Microsoft, Unilever, Pfizer, Starbucks সহ 100+ জায়ান্ট কোম্পানি ফেইসবুক এড বয়কট করা!

 মে মাসে শুরু হওয়া #StopHateForProfit ক্যাম্পেইন মেজর কোম্পানিগুলোকে আহবান করছিল ফেইসবুকে এড দেয়া বয়কট করতে। এই ক্যাম্পেইনের জন্ম হয়েছিল বারবার অনুরোধ স্বত্ত্বেও হেইট স্পীচ, ভায়োলেন্স এবং ভুল তথ্য রোধ করতে কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে ফেইসবুক টপ ম্যানেজমেন্টের অনাগ্রহ, ব্যর্থতা এবং কিছুটা ঔদ্ধত্য।

 আমরা সবাই জানি যে ‘Stop Hate for Profit’ ক্যাম্পেইনে সাড়া দিয়ে ফেইসবুকের রেভিনিউ এর অন্যতম উৎস বড় বড় কোম্পানিগুলো এড স্থগিত করার ডিসিশন নেবার কারণে রাতারাতি ফেইসবুকের শেয়ার 8.3% নেমে গিয়েছিল।

 যার ফলে ফেইসবুকের মার্কেট ভ্যালু  $56 billion কমে যাওয়ার পাশাপাশি ফেইসবুকের CEO Mark Zuckerberg এর নিজস্ব শেয়ারের ভ্যালুও  $7.2 billion কমে দাঁড়িয়েছে $82.3 billion। (বাই দ্যা ওয়ে, জাকারবার্গ এবং আমার দুজনের নামের শুরুতেই Mark থাকার জন্য জাকারবার্গকে আমার ছোটবেলায় মেলায় হারিয়ে যাওয়া ভাই ভাববেন না কাইন্ডলি :p)

 বাংলাদেশে লাখ লাখ বিজনেস এখন এডভার্টাইজিং এর জন্য অনেকাংশেই ফেইসবুক নির্ভর। শুধুমাত্র ফেইসবুক এডই না, আমাদের দেশে অনেক অনেক fcommerce বিজনেস গড়ে উঠেছে পুরোপুরি ফেইসবুকের উপর ভিত্তি করে।

রিসেন্টলি আমি IBA (DU) এর DBA (Doctor of Business Administration) প্রোগ্রামের একটি সেমিনারে অংশগ্রহন করেছিলাম যেখানে আইবিএ এর ডিরেক্টর শ্রদ্ধেয় Ferhat Anwar স্যার, Morshed Jahan স্যার সহ অন্যান্য সম্মানিত ফ্যাকাল্টি এবং ডক্টরাল রিসার্চার বৃন্দ আমাদের ecommerce এবং fcommerce ইন্ডাস্ট্রি, প্র্যাক্টিস, ইকোনোমিক ইম্প্যাক্ট ইত্যাদি নিয়ে আলোচনা করছিলেন।

বাংলাদেশে ইকমার্স এবং f-commerce বিজনেসের প্রতি উদ্যোক্তাদের ক্রমবর্ধমাণ আগ্রহ, বড় কোম্পানিগুলোর ডিজিটাল মার্কেটিং এ বাজেট বৃদ্ধিকরণ এবং ফেইসবুককে কেন্দ্র করে সাম্প্রতিক ঘটনাবলীর প্রেক্ষাপটে তাই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কিছু আলোচনা আমাদেরও করা প্রয়োজন -

  1. 1
    শুধুমাত্র ফেইসবুক নির্ভর বিজনেস কতটা sustainable?
  2. 2
    কি ভাবে আমরা একটা বেটার বিজনেস ইকোসিস্টেম তৈরি করতে পারি যা পুরোপুরি ফেইসবুক নির্ভর না?

প্রিয় ব্র্যান্ড প্র্যাকটিশনার, আমার আজকের লেখার উদ্দেশ্য উপরে উল্লেখিত প্রশ্ন এবং সল্যুশন নিয়ে একসাথে আলোচনা করা এবং এর মাধ্যমে অদূর ভবিষ্যতে একটা বেটার বিজনেস ইকোসিস্টেম তৈরি করার চেষ্টা।

Facebook for Business: THE GOOD

এই যুগে বিজনেস শুরু করা এবং মার্কেটিং প্রসেসটাই আগের থেকে অনেক সহজ হয়ে গিয়েছে ফ্রি তে Facebook Business Page খোলার সুবিধা থাকার কারণে।

 আগে বিজনেস করতে হলে একজন ফাউন্ডার কে চিন্তা করতে হতো Website তৈরির টেকনিক্যাল ইস্যু, ডাটা ম্যানেজমেন্ট, সিকিউরিটি ইত্যাদি নিয়ে...সেই সাথে খরচের ব্যাপারটা তো ছিলই।

 এক দশক আগেও বড় বড় কোম্পানিগুলোকে Above the Line (ATL) এডভার্টাইজিং (টেলিভিশন, রেডিং, নিউজপেপার) এর উপর অনেক বেশি নির্ভর করতে হতো।

আপনি নিশ্চয়ই JOHN WANAMAKER এর সেই বিখ্যাত উক্তিটি শুনেছেন - “HALF THE MONEY I SPEND ON ADVERTISING IS WASTED; THE TROUBLE IS I DON'T KNOW WHICH HALF!”

অপরপক্ষে ছোট বা মিডিয়াম সাইজড কোম্পানিগুলো ATL এডভার্টাইজিং করারা সামর্থ্য না থাকার কারণে Below the Line (BTL) এর উপর (ডিরেক্ট মেইল, ইন স্টোর) বেশি নির্ভরশীল ছিল।

 কিন্তু ফেইসবুক (এবং গুগল) এর কল্যানে এখান আর ট্রেডিশনাল মিডিয়ার মতো substantial বাজেট বা প্ল্যানিং এর প্রয়োজন পড়ছে না। 

 কেউ চাইলে জাস্ট 1 dollar খরচ করেও টেস্ট এড রান করতে পারছে, তারপর প্রয়োজন অনুযায়ী স্কেলআপ করছে। আবার বড় কোম্পানিগুলো চাইলে মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার খরচ করে ফেইসবুকের 2.4 বিলিয়ন একটিভ ইউজারকে রিচ করতে পারছে।

 শুধুমাত্র ফেইসবুক এবং Instagram পেইজই নয়, বিজনেস ফ্রেন্ডলি করার জন্য Facebook Group, Event, Live, Instagram ইত্যাদি অনেক ফিচারই বিগত কয়েক বছরে অনেক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে।

 অনেক স্টুডেন্ট এবং হাইজওয়াইফ এখন ফেইসবুক প্ল্যাটফরম ব্যবহার করে স্বনির্ভর হতে পেরেছে। আবার শুরুতে শুধুমাত্র একটা ফেইসবুকে পেইজ দিয়ে ছোট আকারে যাত্রা শুরু করে অনেক বিজনেস এখন বড় আকার ধারণ করেছে এমকি বিদেশেও সুনাম কুড়িয়েছে।

 কিন্তু ফেইসবুকে বিজনেসের এই সব পজিটিভ দিকগুলোকে আমাদেরকে কমপ্লিটলি ইউটিলাইজ করতে হবে।

 ছোট আকারে শুরু করার সুযোগ থাকলেও শুধু Boost বাটনের মতো লিমিটেড কিছু ফিচারের গন্ডিতে আটকে না থেকে বিজনেস বড় করার স্বার্থে কন্টিনিউয়াস লার্নিং এর পিছনে ইনভেস্টমেন্ট করার মেন্টালিটি অত্যন্ত প্রয়োজন।

এই ডিজিটাল যুগে অনেক ভাল ভাল ব্লগ রয়েছে শেখার জন্য, গুণগত মানসম্পন্ন অনলাইন কোর্স রয়েছে নামকরা প্লাটফরম গুলোতে, ইক্যাব থেকে শুরু করে অনেক অর্গানাইজেশন এবং প্রতিষ্ঠান স্কিল ডেভোলপমেন্টের জন্য ট্রেইনিং, ওয়ার্কশপ ইত্যাদি আয়োজন করছে যেগুলো কাজে লাগিয়ে নিজের স্কিল, ক্যারিয়ার এবং বিজনেসে exponential growth আনা সম্ভব।

ফেইসবুক এবং মার্ক (আমার মিতা!) জাকারবার্গকে নিয়ে তৈরি করা ‘Social Network’ নামক মুভিতে Sean Parker এর সেই বিখ্যাত ডায়লগের কথা মনে আছে?

“- A MILLION DOLLARS ISN'T COOL. YOU KNOW WHAT'S COOL? A BILLION DOLLARS!”

The BAD

ফেইসবুক এর কল্যাণে অনেক অনেক উদ্যোক্তার বিজনেসে হাতেখড়ি নেবার সুযোগ হচ্ছে এটা যেমন সত্য, অপরদিকে এর ভুল ব্যবহার এর ফলে সামগ্রিক বিজনেস ইকোসিস্টেম অনেক সময় ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে এটাও অস্বীকার করার উপায় নেই।

 “ফেইসবুকে চাইলেই বিজনেস করে ইনকাম করা যায়” এই ভুল ধারণার বশবর্তী হয়ে এখন অনেকেই ভাল করে না জেনে শুনে নেমে পড়ছে।

 এর ফলাফল? ফেইসবুক এড কাজ করে না বলে কিছুদিন পর পর শোরগোল তোলা, কয়েক মাস পর নিজের সীমিত পূজি হারিয়ে ব্যর্থ হয়ে ফিরে যাওয়া, ভুল বিজনেস প্র্যাকটিস এর কারণে কাস্টোমারদের মধ্যে অসন্তোষ তৈরি এবং টোটাল বিজনেস ইকোসিস্টেমে তার নেগেটিভ ইম্প্যাক্ট।

YOUR BUSINESS SHOULD NOT BE COMPLEX, BUT THAT DOESN’T MEAN IT'S GOING TO BE EASY!

আমি রিসেন্টলি জনপ্রিয় EdTech প্ল্যাটফর্ম Bohubrihi তে আমার “Facebook Ads and Marketing Mastery” কোর্সের একজন স্টুডেন্টের অডিয়েন্স টার্গেটিং দেখছিলাম। তিনি আক্ষেপ করে বলছিলেন যে গত এক বছরে হাজার হাজার ডলার খরচ করেছেন ফেইসবুক এডের পিছনে কিন্তু আশানূরুপ রেজাল্ট পাচ্ছেন না।

 কৌতুহল বশত আমি তার Ads Manager এ গিয়ে দেখলাম - উনি এতদিন বাংলাদেশের প্রায় ১২ কোটি মানুষকেই টার্গেট করছিলেন, যেখানে বাংলাদেশে তার প্রসপেক্ট সর্বসাকুল্যে ২০ লাখ হতে পারে!

 ফেইসবুক এড এর সহজলভ্যতার কারণে এখন অনেকে বিজনেসের শুরুতে তাদের Ideal কাস্টোমারকে আইডেন্টিফাই করার জন্য যথেষ্ট সময় এবং শ্রম না দিয়ে সরাসরি টার্গেটিং এ চলে যাচ্ছে, যার ফলে রেজাল্ট আসছে না।

এজন্যই Byers Personal বা Customer Avatar তৈরি করাটা জরুরী। এবং সেই সাথে প্রোপার Funnel তৈরি করে ফেইসবুকে এডভার্টাইজিং রান করর কোন বিকল্প নেই (এগুলো অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং আমার ফেভারিট টপিক, পরবর্তীতে একটা একটা করে স্ট্রাটেজি নিয়ে ডিটেইল আলোচনা করার ইচ্ছে আছে যেন আপনি ভালভাবে আয়ত্ব করে আপনার বিজনেসে ইমপ্লিমেন্ট করতে পারেন)

একটা সাকসেসফুল বিজনেস করাতে হলে প্রতিটা কোম্পানিকে অবশ্যই নিজেদের বিজনেসের কোর ফাংশনগুলোর উপর যথেষ্ট দক্ষতা অর্জন করতে হবে - This is the law of successful business.

The UGLY

ফেইসবুকে এই মূহুর্তে 8 মিলিয়ন বিজনেস রয়েছে। এদের মধ্য যারা বছরে 1 মিলিয়ন ডলারের উপর এড এ খরচ করে তাদেরকে আমরা বলি বিগ এডভার্টাইজার, বাকী বেশিরভাগই অসংখ্য ছোট ছোট ব্যবসায়ী।

 এই ছোট ছোট ব্যবসায়ীরা ইনডিভিজুয়ালি খরচ কম করলেও ফেইসবুকের মেজর মাথাব্যাথার কারণ, যেহেতু তারা অনেক বেশি sales বা conversion focused.

 অপরপক্ষে বড় বড় কোম্পানিগুলো সাধারণত ব্র্যান্ড ইমেজ, ক্যাম্পেইন awareness এর পিছনেই কোটি কোটি ডলার খরচ করে। তাই ফেইসবুকের এলগরিদম অনেক সময়ই বড় ব্র্যান্ডগুলোকেই বাড়তি বেনিফিট দিয়ে থাকে, উপরন্তু তাদের ক্যাম্পেইন বাজেটও বেশি।

 ফেইসবুকের এলগরিদম অত্যন্ত কমপ্লেক্স, সিক্রেট এবং অনেক অনেক ভ্যারিয়েবল এর উপর নির্ভরশীল। তবুও আমি খুব সহজ ভাষায় যদি বলি - আপনি নিউজফিডে কি দেখবেন তা নিচের চারটি ফ্যাক্টর এর উপর নির্ভর করেঃ

  1. 1
    যে সমস্ত কন্টেন্ট (পোস্ট, এড) আপনাকে দেখানো সম্ভব তার একটা ফুল Inventory
  2. 2
    কোন কন্টেন্টে কি রয়েছে তার একটি Signal
  3. 3
    আপনি প্রতিটা কন্টেন্টে কিভাবে রেসপন্ড করবেন তার একটা Prediction
  4. 4
    সবগুলো ফ্যাক্টর এর উপর ভিত্তি করে করে প্রতিটা কন্টেন্টের জন্য একটা ফাইনাল Score

একটা এড দেখানোর সময় ফেইসবুক সবসময় চেষ্টা করবে তার এলগরিদম ব্যবহার করে ইউজার কে বেস্ট এক্সপেরিয়েন্স দিতে। বড় ব্র্যান্ডগুলো একারণেই অনেক সময় এডভান্টেজ পেয়ে যায় (সব সময় না), অপরপক্ষে ছোট বিজনেস গুলো দেখে মাসে মাসে তাদের এডের Reach কমছে, ROI কমছে অথচ খরচ বাড়ছে।

 শুধুমাত্র ফেইসবুক এর উপর নির্ভরশীল হয়ে বিজনেস করাটা অনেকটা রাস্তার পাশে কার্টে ফুড বিজনেস করার মতো! যে কোন সময় পাওয়ারফুল কোন নেতা, সন্ত্রাসী অথবা পুলিশ (পড়ুন ফেইসবুক) উপযুক্ত কারণ ছাড়াই উঠিয়ে দিতে পারে।

 কয়েকবছর আগে বাংলাদেশ সরকার কয়েকমাসের জন্য ফেইসবুক বন্ধ করে রেখেছিল, তখন কিন্তু আমরা দেখেছি ফেইসবুকে নির্ভর অনেক বিজনেসকে ভয়াবহ বিপর্যয়ের সম্মুখীন হতে। (প্রাসংগিক - ইন্ডিয়া রিসেন্টলি টিকটক ব্যান করে দিয়েছে)

 ফেইসবুক বা কোন একটা প্লাটফর্মের উপর হান্ড্রেড পারসেন্ট নির্ভরশীলতা তাই একটা Recipe for Disaster!

 অপরপক্ষে ফেইসবুকের পাশাপাশি নিজস্ব একটি মান-সম্পন্ন ওয়েবসাইট কিংবা App এর মাধ্যমে সলিড প্রেজেন্স তৈরি করতে পারলে পুরো বিজনেসটাই আপনি Own করতে পারবেন। আপনার ভিজিটর, ইমেইল সাবস্ক্রাইবার, কাস্টোমার, প্রোডাক্ট সবই আপনার থাকবে এবং কাস্টোমার বেইজও আরো বেশি লয়াল হবে।

Facebook Ads Course

Action Points

বিজনেসের প্রাথমিক পর্যায়ে ফেইসবুকে ছোট ভাবে শুরু করলেও বিজনেস গ্রোথের সাথে সাথে পুরোপুরি ফেইসবুক নির্ভরশীলতা থেকে বের হয়ে আসতে হবে। বড় কোম্পানিগুলোকেও শুধুমাত্র ফেইসবুক এডের উপর নির্ভর না করে অল্টারনেট মিডিয়া খুজে বের করতে হবে এবং অন্যান্য উপযুক্ত প্লাটফরমগুলোকে ইফেক্টিভলি ইউজ করতে হবে।

আর সেই সাথে একটা প্রোপার প্রসেস তৈরি করতে হবে যা আপনার ডিজিটাল মার্কেটিং থেকে বেটার ROI পেতে সাহায্য করবে।

একই ভাবে আমাদের নীতি নির্ধারকগণ, গভর্নমেন্ট, ইক্যাব, বেসিস, একাডেমিক সহ সবাইকে একসাথে এগিয়ে আসতে হবে যেন ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপ করে আমরা বিজনেস ইকোসিস্টেম এবং দেশের ইকোনোমিকে পরবর্তী স্টেজে নিয়ে যেতে পারি।

সর্বোপরি, দৃষ্টিভঙ্গিতে কিছুটা পরিবর্তন এনে ফেইসবুক এর উপর পুরোমাত্রায় নির্ভরশীল না হয়ে এটাকে একটা অতি গুরুত্বপূর্ণ বিজনেস টুল এবং ডিজিটাল চ্যানেল হিসেবে চিন্তা করলেই আপনি এর সর্বোত্তম ব্যবহার করতে পারবেন।

নেক্সট পড়ূনঃ The Curious Case of Evaly!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked

{"email":"Email address invalid","url":"Website address invalid","required":"Required field missing"}